বই পরিচিত: উইলিয়াম কেরীর ‘কথোপকথন’

“বেহারা বুট খোল

যে আজ্ঞা সাহেব খুলছি

বেহারা গরম পানি আন

সাহেব জল তপ্ত করিতে চড়াইয়াছে তৈয়ার হইলে আসিয়া শীঘ্র আনিব

কি। গরম পানি এখন পর্যন্ত তৈয়ার হয় না আমি না গাড়িতে যাওন কালে হুকুম দিয়া গেলাম।”

(তৎকথা, পৃষ্ঠা ৩১)

উপরের আপাত আলাপচারিতামূলক অংশটুকু ১৮০১ খ্রি. প্রকাশিত একজন ইউরোপীয় ব্যক্তির বাংলা ভাষায় রচিত প্রথম পুরো মাপের সংলাপধর্মী গ্রন্থ থেকে নেওয়া হয়েছে। এই ‘কথোপকথন’ রচনা করেছেন উইলিয়াম কেরী।

এ বইটিতে আমরা একজন ইংরেজের বাংলা ভাষা শেখার প্রয়াসকে দেখতে পারবো। বিভিন্ন কাল্পনিক কথোপকথনের মাধ্যমে বাংলা ভাষায় নূন্যতম দক্ষতা অর্জনের চেষ্টা নজরে আসবে। আরেকটা জিনিস সবসময় নজরে পড়বে সেটা হলো সাহেবরা তাদের আদেশ-নিষেধ এবং হুকুম তালিম করার জন্য হুকুম দেওয়ার ভাষাটাই রপ্ত করার প্রয়োজন বোধ করতো।

কাল্পনিক কথোপকথনে দেখা যায় পাঁচ-ছয় ভাষায় পণ্ডিত একজন মুনসি ও সাধারণ এক ইংরেজের কাছে চাকর হিসেবে গণ্য হতো। সেখানে শিক্ষক, ওস্তাদ বা পণ্ডিতদের প্রতি স্বাভাবিক শ্রদ্ধার যে চিরায়ত রীতি এ অঞ্চলের সেটা পাত্তা পায়নি। সম্পর্কের ভিত্তি কেবল একটা: শাসক ও শাসিতের সম্পর্ক।

বইটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি থেকে পড়তে চাইলে:

বই: কথোপকথন

লেখক: উইলিয়াম কেরী

কল নাম্বার: B891.444CAK

Related Posts

About The Author

Add Comment