ভূ-কেন্দ্রিক মতবাদ

মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব। কেননা মানুষ শুধুমাত্র মাটির দিকে তাকিয়ে খাবারের সন্ধান করে না।সে আকাশের দিকে তাকিয়েছে। চিন্তা করেছে কেন এইসব জিনিস আমাদের চারদিকে ঘুরে বেড়ায়।
মানুষের মধ্যে যেমন সংস্কার আছে, তেমনি আছে কুসংস্কার।
আগের দিনে মানুষ মনে করত-পৃথিবী হচ্ছে সৌরজগতের মধ্যমণি।আর সূর্য, চন্দ্র ও অন্যান্য গ্রহও নাকি পৃথিবীকে কেন্দ্র করে ঘুরছে।তারা দুটি কাল্পনিক বিন্দুকেও গ্রহ মনে করত।এরা হলো-রাহু ও কেতু, যদিও এরা জড় বস্তু নয়।
তবে সেকালের কেউ কেউ মনে করতেন পৃথিবী না, সূর্যই হলো সৌরজগতের মধ্যমণি।এরা হলেন-পিথাগোরাসের অনুসারী ফিলেলাউস”,”একফ্যান্টাস”,”আর্যভট্ট”। তবে ‘Majority is power’। সংখ্যাগরিষ্ঠতার কারণে তাদের মতবাদ মাটির নিচে চাপা পড়ে গেল।
গ্রিসের ইউডকাসাস উৎকেন্দ্রিক ও প্রতিমণ্ডল মতবাদের অবতারণা করলেন।আবার হিপারকাস(১৫০-১২৭.খ্রি.পূ)চন্দ্র সূর্যের অবস্থান, গ্রহনের কাল নির্ণয় এবং অয়নচলন ও নক্ষত্রের তালিকা প্রস্তুত করলেন।
অবশেষে দ্বিতীয় শতাব্দীতে আর্বিভূত হলেন ক্লাডিয়াস টলেমি। তিনি রচনা করলেন ১৩ খন্ডের Almagest-Mathematical Compilation। এই গ্রন্থে স্থান পেল অনেকের গবেষণা ও পর্যবেক্ষণ। বাদ গেলেন না হিপারকাসও।বইটি খুব জনপ্রিয়তা পেল। এমনকি ভারত ও আরবের জ্যোতিষবিজ্ঞানে এটি প্রভাব ফেলল।
আর আর্যভট্টের ভূ-ভ্রমণবাদ হারিয়ে গেল।
অ্যারিস্টটলের মতবাদকে মাথায় করে টলেমি প্রায় ১৫০০ বছর রাজত্ব করেন। কিন্তু বিজ্ঞান যে প্রচন্ড গতিময়।বিজ্ঞান হলো অনেকটা নদীর মতোন।নদীর এক পাড়ে যখন ভাঙন ধরে, তখন অন্য পাড়ে চর তৈরি হয়। বিজ্ঞানে ধ্রুব সত্য বলে কিছু নেই। কিন্তু জ্যোতিষবিজ্ঞানে এতটাও গতি নেই। এই বিজ্ঞানে আছে অলীক কল্পনা আর কুসংস্কার।
সমাজ ব্যতিক্রমী মানুষের সংখ্যা খুবই কম।কিন্তু তারাই ইতিহাস তৈরি করে। এই রকম ব্যতিক্রমী একজন মানুষ হলেন কোপারনিকাস (১৪৭৩-১৫৪৩ খ্রি.)।তিনি তার সময়কার অল্প কিছু যন্ত্রপাতি দিয়ে গবেষণা করেন।প্রায় দীর্ঘ ২০ বছরের গবেষণার পর তিনি রচনা করেন De Rovolutionibus Orbitus Caelestieous (on the Revolutions of the Havenly spheres) ১৫৪৩ খ্রিষ্টাব্দের ২৩ মে প্রকাশিত হয়। যার ফলে টলেমির ১৫০০ বছরের ভূ-কেন্দিক তত্ত্ব বাতিল হয়। তবে তার দীর্ঘ শাসনের অবসান রাতারাতি হয় নি।টাইকো ব্রাহে,কেপলার, গ্যালিলিওর আবির্ভাবে তা তাসের ঘরের মতো ভেঙ্গে পড়ে।
আর সূচিত হয় বিজ্ঞানের জয়জয়কার। ✌✌

Related Posts

About The Author

Add Comment