লেখকদের অবশ্য পাঠ্য একটি বইয়ের কথা

on writing

এক বই আপনাকে আরেক বইয়ের কাছে নিয়ে যাবে। যেমন এক নদী অন্য নদীর সাথে মিশে তেমনি একটি বই অন্য অনেক বইয়ের সন্ধান দেয়। আমরা যখন এই মেশানোর কাজটা ঠিকমত করতে পারবো তখনই জ্ঞানের সমুদ্রের সন্ধান পাবো। বিভিন্ন নদী-সমুদ্রগুলো যেমন কোন না কোনভাবে একে অন্যের সাথে সম্পর্কিত তেমনি জ্ঞানের বিভিন্ন শাখা-উপশাখা একে অন্যের সাথে গভীর সম্পর্কে জড়িত।

স্টিফেন কিং-এর আত্মজীবনীমূলক লেখা ‘অন রাইটিং’ থেকে অনেক জিনিস শিখলাম। এই ভদ্রলোক ছোট ছোট বাক্যে ও সহজ কথায় লেখালেখির বেসিক কলার সাথে পরিচয় করে দিচ্ছেন। তিনি ভূমিকাতে একটা বইয়ের সাজেশন দেন যেটা প্রত্যেক হবু লেখক বা লেখক হতে আগ্রহীদের পড়া উচিত।

“I’ll tell you right now that every aspiring writer should read The Elements of Style.”

Stephen King, On Writing (p11)

স্টিফেন কিংয়ের মতো এমন জাঁদরেল লেখক, সেরা পাঠক একটা বই পড়ার জন্য জোর পরামর্শ দিচ্ছেন সেটা বেশ দৃষ্টি আকর্ষনীয় ব্যাপার বৈকি। উল্লেখিত বইয়ের নাম ও রেফারেন্স অন্য অনেক বইয়েও পেয়েছি। আমার একজন প্রিয় শিক্ষক উইল ডুরান্টের বাছাই করা সেরা একশো বইয়ের তালিকাতেও এ বইটার নাম দেখেছি। মানে ‘দ্য ইলেমেন্টস অব স্টাইল’। লেখকদ্বয় হচ্ছেন উইলিয়াম স্ট্রাঙ্ক জুনিয়র এবং ই.বি. হোয়াইট।

অনেকগুলো বই নিয়ে ব্যস্ত থাকার কারণে গুরু উইল ডুরান্টের পরামর্শ সত্ত্বেও বইটি সংগ্রহ করার কোন তাগিদ অনুভব করিনি। গত দুদিন স্টিফেন কিংয়ের সাথে আছি। তার অনেকগুলো মৌলিক পরামর্শ আমাকে বেশ হেল্প করেছে। তার প্রতি আস্থা তৈরি হয়েছে। এজন্য স্টিফেন কিংয়ের সরাসরি সাজেশন দেখে আর বিরত থাকতে পারবো না মনে হচ্ছে। কিং এটাও স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন যে বইটি মাত্র ৮৫ পৃষ্ঠার। তাই আশা করি কয়েক ঘন্টার মধ্যে এটা পড়ে শেষ করে ফেলা যাবে।

আশা করি লেখালেখির বেসিক অনেক সূত্র জেনে নিতে পারবো। নিজেকে নিজেই স্বাগতম জানাতে চাই সেই অসাধারণ অভিজ্ঞতার জগতে! পড়া শেষ করে অবশ্যই অভিজ্ঞতা শেয়ার করবো।

 

পাঠকের ডায়রী

১১ মে, ২০১৬

সাবিদিন ইব্রাহিম

১৭৬ ফকিরের পুল, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০

Related Posts

About The Author

Add Comment