বই পড়া ও রিভিয়্যু লিখা নিয়ে কয়েকটি টিপস

আপনারা যারাই এই লেখা পড়ছেন তাদের সবাই নিশ্চয়ই অনেক বই পড়েছেন, বই পড়তে অনেক সময় দিয়েছেন যে সময় আপনি টিভি দেখার পেছনে দিতে পারতেন, কোন মুভি দেখার পেছনে দিতে পারতেন বা বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতে পারতেন। এই এতকিছুর সাথে কম্প্রোমাইজ করে আপনি বই পড়াতে সময় দিলেন। তাহলে বুঝতেই পারছি এটা আপনার প্রেফারেন্স।

বই পড়তে একটু সময় দিতে হয় বা অনেক ঘন্টা ব্যয় করতে হয়। এখন আমার এই সময় দেয়াটা যদি কাজের না হয় তাহলে সেটাকে অপব্যয় বললে তো ভুল হবেনা। আমি জাস্ট ইউটিলিটিরিয়ান পারস্পেকটিভে কথা বলছিনা। প্রত্যেক কাজেরই একটা লক্ষ্য থাকে, উদ্দেশ্যহীন কাজ কি আছে?

Painting by William Oliver

Painting by William Oliver

বই পড়া সেটা তো অনেক সফিস্টিকেটেড কাজ। এখন যেহেতু এর পেছনে সময় দিয়েছেন বা ভবিষ্যতেও আরও সময় দিবেন তাহলে আসেন আমাদেরক প্রশ্ন করি, ‘একটা বই সম্পূর্ণ শেষ করার পর এটার উপরে কি আমি পাঁচ মিনিট কথা বলতে পারি?’ যে বইটা পড়তে পাঁচ ঘন্টা সময় দিলাম এটার উপর কি পাঁচ মিনিট লেকচার দিতে পারবো?

যদি পাঁচ মিনিট কথা বলতে পারেন তাহলে আপনি উৎরে গেলেন, আর আধা ঘন্টা যদি লেকচার দিতে পারেন তাহলে তো আপনি অসাধারণ রিডার! এক্ষেত্রে জ্ঞানতাপস আবদুর রাজ্জাকের কথাটা মনে রাখার মতো: যদি একটা বই পড়ে সেটা রিপ্রডিওস না করতে পারো তাহলে সেটা তোমার পড়া হয়নি। বলছিলাম আহমদ ছফার ‘যদ্যপি আমার গুরু’র কথা।

apology

বিশ্বের সেরা রিডারদের একজন জ্ঞানগুরু প্লাতো। সেই যে আদালতে সর্বশেষ জবানবন্দি দেন সক্রেতিস যেটা এক অসাধারণ বক্তৃতা, তার অসাধারণ রিপ্রোডাকশান করছেন প্লাতো। সেটা লিখতে গিয়ে প্লাতো অবশ্যই নিজে অনেক শব্দ হয়তো যোগ করেছেন বা পরম্পরায় হেরফের করেছেন। কিন্তু তিনি সক্রেতিসের বেশিরভাগ কথা নিশ্চয়ই লিপিবদ্ধ করতে পেরেছিলেন। সক্রেতিস তা কোন বই লিখেন নি, এজন্য আমরা ধরতে পারি সক্রেতিসের জবানবন্ধি তার সর্বশেষ বই যেটা রিখেছেন তার এক শিষ্য।

রিপ্রোডাকশনের স্ট্যান্ডার্ড বলতে আমি সেটাকে বলতে পারি।

আহমদ ছফার ‘যদ্যপি আমার গুরু’ ও তেমন একটি বই। সেখানে আহমদ ছফা কোন অডিও রেকর্ডের উপর আশ্রয় নেননি তার প্রমাণ সুস্পষ্ট। অতীতের স্মৃতি থেকে টেনে হিচরে অনেক কথা নিয়ে এসেছেন এবং নিজের গুরুর একটা ছবি একেছেন যে ছবি দিয়েই আমরা অনেকে আব্দুর রাজ্জাককে দেখি, বুঝি, পাঠ করি বা অনুধাবন করার চেষ্টা করি।

এখন আসেন আমাদের দিকে নজর দেই। আমরা যারা বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজে পড়ছি পরীক্ষার জন্য তো অনেক পড়াশুনা করতে হয়, বই পড়তে হয়, নোট পড়তে হয় ইত্যাদি। তারা উপকার পেলেও পেতে পারেন।

একজন ভালো পাঠক হতে হলে কি কি করা যায়:

১. সব ধরণের বই পড়ে কিন্তু রুচি তৈরি করে রাখতে হবে

little girl007

প্রথমত একজন সর্বভুক পাঠক সব ধরণের বই-ই পড়ে থাকেন। বিভিন্ন ধরণের বই পড়লে একসময় নিজেই ভালো বই বাছাই করার সক্ষমতা অর্জন করতে পারবেন। প্রথমে তাই সামনে যে ধরণের বই-ই আসে সেগুলো পড়ার চেষ্টা করতে পারেন। এতে পড়ার অভ্যাসটা হবে। একসময় একটা রুচি ডেভলপ করবে।

২. সব বই পুরোটা পড়ার সময় কই

lady reads

জগতে এতো বই আছে তার সব কি পড়া সম্ভব বা অবাস্তব কল্পনা না? প্র্যাকটিক্যাল হওয়া ছাড়া আপনার সামনে আর কোন অপশন নাই কিন্তু। কিছু কিছু বইয়ের শুধু মলাট দেখবেন, কিছু কিছু বইয়ের শুধু নাম ও লেখকের নাম দেখবেন, কিছু বইয়ের ভূমিকা পড়েই খতম আর কিছু বইয়ের ফ্ল্যাপ।

এ সব কিছু দেখে তারপর যদি মনে হয় আমার আরও সামনে আগাতে হবে তবেই না আগাবো।

৩. সিদ্ধান্ত নিলাম পুরো বই পড়বো, তারপর?

Charles_Edward_Perugini_ak1

ধরেন একটা বই পুরো পড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেললাম, তারপরও কি পুরোটা পড়তে হবে?

কিছু কিছু বইয়ের ক্ষেত্রে দেখা গেছে একই কথা লেখক ঘুরিয়ে ফিরিয়ে বারবার বলছেন। আবার অনেক বইয়ে লেখক তার অনেকগুলো প্রবন্ধ একসাথে করে জুড়ে দেন। এর মধ্যে হয়তো এক দুটা আপনার কাজে লাগবে বা ভালো লাগে। এক্ষেত্রে আপনার দরকারি বা ভালো লাগার প্রবন্ধটি পড়ে ফেললেই হয়। অন্য সব না পড়লেও চলতে পারে।

৪. এই বইটা পুরোটাই পড়তে হবে, তাহলে

victorian_Lady_figure

এমন কিছু বই আছে যে বইগুলো পুরোটা না পড়লে আপনার হবেনা, আপনি শান্তি পাবেন না, মাথায় পোকার মতো লেগে থাকবে শেষ না করার আকুতি।

সেগুলো কেমনে পড়বো?

৫. বইটা পড়ার আপনার উদ্দেশ্যটা কি আসলে?

Painting: Stalin Reading

Painting: Stalin Reading

বই আনন্দের জন্য পড়া হয়, জানার জন্য পড়া হয়, লেখার জন্য পড়া হয়, গবেষণার জন্য, বলার জন্য পড়া হয়, পরীক্ষার জন্য পড়া হয়, সময় কাটানোর জন্য, অন্যকে দেখিয়ে দেয়ার জন্য পড়া হয় আরও বিচিত্র কারণ আপনি এর সাথে যোগ করতে পারেন।

৬. বই পড়ি আনন্দের জন্য, সময় কাটানোর জন্য

Girl In The Hammock by Winslow Homer

Girl In The Hammock by Winslow Homer

এই দুই কাজের জন্য বই পড়লে আপনার সাথে আর কিছু দরকার নাই। শুধু বইটা হলেই হইলো। ধরবেন আর পড়বেন, ব্যস! এটা আপনি চেয়ারে হেলান দিয়ে, বিছানায় গা এলিয়ে, বারান্দায় বসে, ছাদে বসে বা গাছে বসেও পড়ে ফেলতে পারেন।

read tree

৭. জানতে পড়ি, লিখতে পড়ি, গবেষণার জন্য পড়ি

cute girl reads

আপনি একটু সিরিয়াস পাঠক। তাইলে কিন্তু আপনাকে একটু বেশি প্রিপারেশন নিয়েই নামতে হবে। সাথে কিছু গুরুত্বপূর্ণ মালপত্র রাখতে হবে; এই যেমন খাতা কলম, পেন্সিল আবার পেন্সিল শার্প করার জন্য শার্পনার।

৮. নোটবুকটা বড় নিবেন

Mignard-autoportrait

পড়ার সময় নোট নিতে হয় এটা প্রায় সবাই জানেন। কিন্তু আমার মতো আপনারা একই ভুল চারবছর করে যাবেন না। আমি প্রথম দিকে ছোট ছোট প্যাডে নোট নেয়া শুরু করেছিলাম। শেষে নোট খাতার পরিমাণ বিশ পার হযে গেছিলো। এতে ক্ষতি হয়েছিল কি আমি এদের হদিস রাখতে পারতাম না। কোথায় কোনটা রাখতাম এটা ভুলে যেতাম। আবার কোন নোটটাতে কি রেখেছিলাম সেটাও ভুলে যেতাম। এজন্য আমার রাখা প্রথম চারবছরের নোটগুলো কোথায় যে পড়ে আছে তা হোফডজন গবেষকদের গবেষণার বিষয় হতে পারে।

অবশেষে পথটা পাল্টালাম। বড় নোটবুক নেয়া শুরু করলাম। আমার ইদানীং কালের নোটবইগুলো বিশাল বড়ো, ২০০ পৃষ্ঠার এদিক ওদিক! খুব মজা এবার নোট লেখা।

আপনার ল্যাপটপ বা মোবাইল ও হতে পারে আপনার নোটবই যদি আপনি সেটাতে অভ্যস্ত হয়ে থাকেন।

৯. বই নিয়ে আলাপ

Book-Talks

যারা অনেকটা নিয়মিত বই পড়েন তাদের পড়াকে কাজে লাগানোর জন্য বইয়ের উপর কথা বলা বা মতামত রাখার যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। কোন লেখকের লেখার সাথে আপনার একমত হওয়া বা ভিন্নমত রাখা বা তর্ক করার সক্ষমতা অর্জন করতে হবে। কোন লেখকের বই পড়ার সময় একেবারে চোখ বুঝে সব গ্রহণ করার মানসিকতা থেকে সড়ে আসতে হবে। অবশ্য প্রাথমিক অবস্থায় অনেক পাঠকই লেখকদের দ্বারা ভড়কে যান এবং সবকিছুতেই একমত হয়ে যান। তবে প্রস্তুত পাঠক এমনটা হন না। নিজেকে একজন প্রস্তুত পাঠক বানাতে হলে পঠিত বইয়ের উপর আপনার নিজস্ব মতামত দেওয়ার সক্ষমতা অর্জন করার চেষ্টা করতে হবে। পঠিত বই নিয়ে সমমনা বা ভিন্নমতের বন্ধুদের সাথে আলাপ করতে পারেন,  বই নিয়ে মতামত রাখার চেষ্টা করতে পারেন। আর ভালো হয় আপনার মতামতকে লিখে ফেলার চেষ্টা করলে। মাঝে মাঝে নিজের মতকে যাচাই করার জন্য কোন বই কয়েকবার পড়া যেতে পারে। প্রথমবার পড়ার পর আপনার যে অনুভূতি ছিল দ্বিতীয় বা তৃতীয়বার পড়ার সময় কেমন দাড়ায় সেটা দেখতে পারেন। যদি প্রথমবারের চেয়ে ভিন্নতর হয় অবাক হবেন না। ভিন্নতাকে স্বাগতম জানাবেন। কারণ আপনি অগ্রসর পাঠক হচ্ছেন!

lets-talk-about-it

১০. সমালোচনা বা রিভিয়্যু লিখা

man

বই পড়া থেকে সবচেয়ে অধিক সুবিধা নিতে হলে আপনাকে সমালোচনা বা রিভিয়্যু লিখতে হবে। পঠিত বইয়ের মূল বিষয়, এর সমস্যা, এর প্রয়োজনীয়তা ইত্যাদি সামনে রেখে সমালোচনা দাড় করাতে পারেন। রিভিয়্যু লেখার জন্য সহজ তিনটি ধাপ অনুসরণ করতে পারেন।

প্রথম ধাপে বইটি নিয়ে আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামতগুলো দিয়ে ফেলবেন। বইটির গুরুত্ব, বিশেষত্ব, প্রয়োজনীয়তার কথা প্রথম ধাপেই বলে ফেলুন। সবার শেষে বলার জন্য ফেলে রাখবেন না। পাঠক শেষ পর্যন্ত নাও যেতে পারে! আপনার প্রথম প্যারাটিই বলে দেবে পাঠক আর আগাবে কিনা।

দ্বিতীয় ধাপে বা মধ্যভাগে আপনি বইটির টেকনিক্যাল বিষয়াদি নিয়ে কথা বলতে পারেন। বইয়ের কতগুলো চ্যাপ্টার আছে, কোনটাতে কি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে তা নিয়ে আলোচনা করতে পারেন। এ অংশটি প্রয়োজন মত টেনে লম্বা করতে পারবেন বা ছোটও রাখতে পারবেন। আপনিই ঠিক করতে পারবেন কতটুকু আগাবেন।

আর তৃতীয় ধাপে বা শেষ অংশে সাম আপ করে ফেলতে হবে। আগের দুটো অংশে আলোচিত বিষয়ের উপর ভিত্তি করে কোন সিদ্ধান্তে পৌছতে পারেন। পাঠক কেন এ বইটি পড়তে পারে বা পড়া উচিত বলে মনে করেন সে বিষয়ে আপনার দৃঢ় মন্তব্যের মাধ্যমে লেখার শেষ টানতে পারেন।

Painting by Thomas Benjamin Kennington

Painting by Thomas Benjamin Kennington

সুখবর! সুখবর!
সাবিদিন ইব্রাহিমের পাঠকনন্দিত প্রথম বই ‘ইংরেজি সাহিত্যের ইতিহাস’ সংগ্রহ করতে চাইলে যোগাযোগ করুন:

আদর্শ বই
২৩ কনকর্ড অ্যাম্পোরিয়াম, কাঁটাবন, ঢাকা-১২০৫
ফোন: 01710 779050)

২০১৭ বইমেলাতে প্রকাশিত হয়েছে সাবিদিন ইব্রাহিম এর অনুবাদে সান জু’র ‘দ্য আর্ট অব ওয়ার’। আড়াই হাজার বছর পুরনো এই ক্লাসিক বইটি পড়তে চাইলে যোগাযোগ করুন:

ঐতিহ্যের বাংলাবাজার ও কাটাবন বিক্রয়কেন্দ্র ছাড়াও দেশের বিভিন্ন অভিজাত বই বিক্রয়কেন্দ্রে।
সরাসরি ঐতিহ্য থেকে ডেলিভারি পেতে ঐতিহ্যের ফেইসবুক পেজ www.facebook.com/oitijjhya এ অর্ডার করুন বা ফোন করুন – ০১৮১৯২৮৪২৮৫

রকমারিতে তো পাচ্ছেনই! রকমারিতে অর্ডার করুন, বই পৌছে যাবে আপনার ঠিকানায়!
রকমারি লিংক: www.rokomari.com/book/author/40494/সাবিদিন-ইব্রাহিম
আর রূপান্তরও রয়েছে আপনার পাশে। ফোনে অর্ডার দিন, বই পৌছে যাবে আপনার হাতে।

Related Posts

About The Author

10 Comments

Add Comment

Leave a Reply to Lutfun nahar lata Cancel reply